নীরব আর্তনাদ!

পুনরাবৃত্ত অভ্যাসের নামই আসক্তি। বলা যায় যে আসক্ত লোকেদের পরিপূর্ণ আনন্দের দরকার। হতাশা, দুশ্চিন্তার মত নেতিবাচক অনুভূতিগুলো থেকে মুক্তি মেলা দরকার। কোলাহলপূর্ণ, দূষিত ও অনুন্নত এই দেশে বাস্তব থেকে দূরে সরে গিয়ে নেশার ক্ষণিকের আনন্দের জগতে ঢুকে যাওয়া যায় খুব সহজেই। চকলেট খাওয়া কিংবা টিভি দেখার মত সাধারণ আসক্তি থেকে শুরু করে সিগারেট বা কোকেনের মত নেশাদ্রব্যের আসক্তি যখন মস্তিষ্কে ঢুকে যায়, তখন সে আসক্তি আর ছাড়তে চায় না।

বাংলাদেশে আসক্তির মাত্রা দিনকে দিন বেড়ে চললেও এ নিয়ে কারো কোন মাথাব্যথা নেই। সব ধরণের মানুষই রাসায়নিক দ্রব্য থেকে শুরু করে ফাস্টফুড কিংবা ভিডিও গেমসের প্রতি আসক্ত হয়ে পড়ছে। এর ফলে শারীরিক স্থূলতা যেমন বাড়ছে আবার অন্যদিকে আসক্ত যুবকেরা নেশার টাকা যোগার করতে চুরি, ছিনতাই তথা সন্ত্রাসে জড়িয়ে পড়ায় সামাজিক নিরাপত্তা হুমকির মুখে পড়েছে।

আসক্তি চরম মাত্রায় পৌঁছলে প্রতিকার হিসেবে নামমাত্র কিছু পুনর্বাসন কেন্দ্র আছে এদেশে। কিন্তু বেশিরভাগ কেন্দ্রই লাইসেন্সপ্রাপ্ত নয়। যাদের বিদেশে চিকিৎসার সুযোগ রয়েছে তারা বাদে বাকিদের অবস্থা করুণ হয়ে ওঠে। আসক্ত ব্যক্তির মানসিক স্বাস্থ্যের দিকে নজর না দিয়ে শুধুই ওষুধ খাওয়ানো বা শারীরিক সুস্থতার কথা ভাবা হয়। কিছু জায়গায় তো আবার আসক্তদের শারীরিকভাবে আঘাতও করা হয়। এসব চাপা আর্তনাদ কেউই শুনতে পারে না।

আসক্তি নিয়ে সামাজিক ধারণাগুলো বদলালেই আসক্তদের সঠিক চিকিৎসা ও পুনর্বাসন সম্ভব। আসক্তি কোন নিষিদ্ধ বিষয় বা পাপ নয়, বরং সহানুভূতি ও ভালবাসার মাধ্যমেই আসক্ত ব্যক্তিকে সুস্থ জীবনে ফিরিয়ে আনা সম্ভব হবে নিশ্চিতভাবেই।

Postedxxx in লাইফ-স্টাইল

মন্তব্য করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশ করা হবেনা। পুরন করা জরুরী *

*

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>

জরিপ

ব্যাংকিং খাতের অবস্থা কি ভালো বলে আপনি মনে করেন?

Loading ... Loading ...
ফেসবুক এ আমরা