স্মার্টফোনের বহুমুখী ব্যবহার

আমরা এমন একটি প্রযুক্তির যুগে বাস করছি যেখানে বিজ্ঞান আমাদের দৈনিন্দন জীবনে বৈপ্লবিক পরিবর্তন এনেছে।ইলেকট্রনিক ডিভাইস বা গ্যাজেট ছাড়া একটি দিনও আমার চলতে পারিনা। স্মার্টফোন এমনি একটি প্রয়োজনীয় ডিভাইস যা ছাড়া আমরা চলতে পারিনা।

স্মার্টফোন আমাদের দৈনিন্দন কাজকর্মকে অনেক সহজ করে দিয়েছে।স্মার্টফোনটি মুলত অপরের সাথে যোগাযোগ করতে মুখ্য ভূমিকা রেখে চলেছে।বিভিন্ন এ্যাপ্লিকেশন আমাদের কাজগুলোকে আরও সংগঠিত করেছে। তাছাড়া সোসাল নেটওর্য়াকিং সাইটে স্ট্যাটাস আপডেট করা, ডিজাইনিং, প্রেজেন্টেশন, গেম খেলা-এসব কিছুকেই স্মার্টফোন সহজতর করেছে।
স্মার্টফোন নিজেই এটার বহুমুখী ব্যবহার উপযোগীতার ধারনাকে একটি নতুন উচ্চতায় নিয়ে গেছে।হাটতে হাটতে কারও সাথে কথা বলা, মেসেজ পাঠানো অথবা ইন্টার্নেট ব্যবহার খুব সহজ।দিন দিন এই সুবিধাগুলো আরও উন্নত হচ্ছে।

প্রতিদিনই বিভিন্ন এ্যাপ্লিকেশন নিয়ে নতুন নতুন স্মার্টফোন বাজারে আসছে।বিজ্ঞানের অগ্রগতির সাথে সাথে নতুন নতুন এ্যাপ্লিকেশনগুলো শুধুমাত্র আমাদের বিনোদনই দিচ্ছে না বরং আমাদের প্রয়োজনীয় কাজগুলো সম্পন্ন করতেও সাহায্য করছে।

গ্রাফিক্যাল ইউসার ইন্টার্ফেসিং এবং গ্রাফিক্যাল আর্ট চলমান অবস্থায় ডকুমেন্ট ও প্রেজেন্টেশন তৈরী করার সুযোগ তৈরী করে দিয়েছে।এখন ডেক্সটপ কম্পিউটারের সামনে বসে কাজ করার প্রয়োজন নেই।শুধুমাত্র একটি স্মার্টফোন দিয়েই দুরবর্তী ব্যবসায়ীক কাজগুলো অনেক সহজে করা যায়।

স্মার্টফোনের এ্যাপ্লিকেশনগুলো মুলত নিদির্ষ্ট গ্রাহকের কথা বিবেচনা তাদের বিভিন্ন কাজে সাহায্য বা বিনোদনের উদ্দেশ্য নিয়ে ডিজাইন করা হয়ে থাকে।এ্যাপ্লিকেশনগুলো বানানো হয় প্রায় সব বয়সী মানুষের কথা বিবেচনা করে যেমন, বাচ্চাদের জন্য বা কিশোর, ছাত্র-ছাত্রী ও ব্যবসায়ীদের জন্য।যাদের প্রয়োজন তারা খুব সহজেই তাদের প্রয়োজনীয় এপস্গুলো অনলাইন মোবাইল স্টোরের বিভিন্ন ক্যাটাগরি থেকে ডাউনলোড করে বা কিনতে পারেন।কিছু সাধারন ক্যাটাগরিগুলো হলো এন্টাটেইনমেন্ট, গেমস্, বুকস, বিজনেস, ফাইনান্স, এডুকেশন, ট্রাভেল, হেলথ্, ফুড ও ড্রিংক, মিউজিক, সোসাল নেটওয়ার্ক, স্পোর্ট এবং নিউজ।

স্মার্টফোনের ব্যবহার শুধুমাত্র আমাদের দৈনিন্দন কাজকর্মগুলো করতেই সাহাজ্য করে না বরং প্রযুক্তির উন্নয়ন সম্মন্ধেও আমাদের ধারনা দেয়।বর্তমানে একটি বাচ্চাও একটি ডিভাইসের বিভিন্ন সফটওয়্যার ও হার্ডওয়্যার সম্মন্ধে খুটিনাটি বিষয়গুলো খুব সহজেই শিখছে।

Postedxxx in প্রযুক্তি

মন্তব্য করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশ করা হবেনা। পুরন করা জরুরী *

*

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>

জরিপ

ব্যাংকিং খাতের অবস্থা কি ভালো বলে আপনি মনে করেন?

Loading ... Loading ...
ফেসবুক এ আমরা