স্মার্টফোন যেভাবে ব্যক্তির দৈনন্দিন জীবনযাত্রা বদলে দেয়

আমরা তথ্য-প্রযুক্তির যুগে বাস করি যেখানে বিজ্ঞান প্রতিনিয়ত আমাদের জীবনে আমূল পরিবর্তন আনছে। ইলেকট্রনিক যন্ত্র ও গ্যাজটে ছাড়া আমরা এখন একটা দিনও চলতে পারিনা। আমাদের কাছে স্মার্টফোন এতটাই অপরিহার্য হয়ে উঠেছে যে এটা ছাড়া আমাদের চলেই না। আমাদের জীবনকে অনেক বেশী সহজ আর আরামদায়ক করে তোলার জন্য এগুলোকে ধন্যবাদ!

দৈনন্দিন কাজগুলো নিখুঁতভাবে করার জন্য আমরা পূর্বে প্রথা অনুযায়ী যেভাবে কাজ করতাম তাতে পরিবর্তনের ধারা এনেছে স্মার্টফোন। একে অপরের সাথে যোগাযোগের ক্ষেত্রে এটি আরো বড় অবদান রাখছে। বিভিন্ন রকম কাজ করতে, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারে, হরেক রকম নকশাঁ ডিজাইন করতে, বিভিন্ন বিষয় তথ্যের মাধ্যমে উপস্থাপন করতে, পেশাদার আলোকচিত্রী হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে স্মার্টফোন এবং এতে থাকা বিভিন্ন প্রযুক্তি আমাদের সাহায্য করছে।

একই সাথে বিভিন্ন কাজ করার ধারণাটিকে বর্তমানে নতুন উচ্চতায় নিয়ে গেছে স্মার্টফোন। এটা দিয়ে আমরা যা করতে পারি তা সত্যিই অসাধারণ। এখন আমরা হাঁটতে হাঁটতে বন্ধুদের কল করতে, এসএমএস দিতে পারছি। একই সাথে ইন্টারনেটও ব্রাউজিং করতে পারছি। দিনের পর দিন সবকিছু আরো ভালো, আরো সহজ এবং আরামদায়ক হয়ে উঠছে।

প্রত্যেকদিন যে পরিমাণ নতুন নতুন স্মার্টফোন এবং তার অ্যাপস আসছে তা সত্যিই অবাক হওয়ার মতো। এই ফোনগুলো আমাদের জীবনের যেসব গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে তা সত্যিই মহৎ। বিজ্ঞানের উত্তরউত্তর উন্নতি এমন কিছু অ্যাপস আমাদের কাছে এনে দিচ্ছে সেটা কেবল আমাদের বিনোদনই দিচ্ছে না, কর্মক্ষেত্রের কাজেও সহায়তা করছে।

কাজ করতে এখন আর কেবল ডেস্কটপ কম্পিউটারের সামনে বসে থাকতে হচ্ছে না। এখন একটি স্মার্টফোন দিয়েই ভ্রমণ, চুক্তি এবং গুরুত্বপূর্ণ ব্যবসায়িক কাজগুলো সহজেই করে ফেলা যাচ্ছে। স্মার্টফোনের প্রতিটি নতুন ভার্সনে থাকছে আগের চেয়ে আরো উন্নতমানের সেবা, বৈশিষ্ট্য এবং অ্যাপস।

স্মার্টফোনের অ্যাপসগুলো নির্দিষ্ট কিছু মানুষকে টার্গেট করে তৈরি করা হয়, যার উদ্দেশ্যে থাকে গ্রাহকদের সাহায্য করা বা নিছক আনন্দ দান করা। এটা সব বয়সের সব ধরণের এবং সব পেশার মানুষের জন্য তৈরি করা হয়। এই অ্যাপসগুলো সাধারণত অনলাইনের মাধ্যমে মোবাইল স্টোর থেকে ডাউনলোড করা হয় অথবা ফোনের সাথেই সংযুক্ত থাকে। তবে স্মার্টফোনের অ্যাপসগুলোর মধ্যে সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য হল-বিনোদন, গেমস, বই, ব্যবসা-বানিজ্য এবং অর্থনীতি, শিক্ষা, ভ্রমণ, স্বাস্থ্য, খাদ্য এবং পানীয়, গান, সামাজিক যোগাযোগ, খেলাধুলা এবং সংবাদ। এছাড়াও আরো অসংখ্য অ্যাপস রয়েছে।

স্মার্টফোন কেবল আমাদের কাজকেই সহজ করে তুলছে না, এটা আমাদেরকে প্রযুক্তিগত শিক্ষা দিচ্ছে। এখন বাচ্চারাও বিভিন্ন যন্ত্রে ব্যবহৃত সফটওয়্যার এবং হার্ডওয়্যার সম্পর্কে পুঙ্খানুপুঙ্খ ধারণা রাখছে।

Tagged with: , , ,
Postedxxx in প্রযুক্তি, বিনোদন, লাইফ-স্টাইল

মন্তব্য করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশ করা হবেনা। পুরন করা জরুরী *

*

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>

জরিপ

ব্যাংকিং খাতের অবস্থা কি ভালো বলে আপনি মনে করেন?

Loading ... Loading ...
ফেসবুক এ আমরা